,

লোহাগড়ায় যুবককে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা: আদালতে মামলা

নড়াইল প্রতিনিধি:

দিনদিন আরো বেশি বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ভয়ংকর সন্ত্রাসী ও লম্পট নিবুল সিকদার(৩৫)। গতকাল বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে নিবুল সিকদার চাচই গ্রামের শুকুর জমাদ্দারের ছেলে শাহিন জমাদ্দার(৩৫)কে কুপিয়ে জখম করেছে। লোহাগড়া হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, সর্বশেষ লোহাগড়া থানায় পুলিশের ক্রস ফায়ারে নিহত দূর্র্ধর্ষ রাকিব ডাকাতের সহযোগি নিবুল সিকদার। নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চাঁচই গ্রামের মোঃ মকবুল হোসেন সিকদারের ছেলে। একাধিক হত্যা, অপহরণ, ডাকাতি, মারপিট ও ধর্ষণ সহ বিভিন্ন মামলার আসামী নিবুল।

গ্রামের লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, স্কুল বয়সেই নিবুল সিকদার বেপরোয়া হয়ে উঠে। গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণির গন্ডি পেরোলেও মাধ্যমিক পর্যায়ে যায়নি। চাচই গ্রামের রজব আলী তার মেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রী কে রক্ষা করতে নিজ ঘরবাড়ি ফেলে ৫বছর আগে অন্যত্র চলে যায়। একই গ্রামের হাবিবার মোল্যার ২ মেয়ে নিবুলের কাছে অত্যাচারিত হয়েছে বলে জানান, হাবিবর মোল্যার স্ত্রী নির্যাতিত তহমিনা বেগম(৪৭)। গত ১১ অক্টোবর সন্ত্রাসী নিবুল সিকদার ঢাকা সেনা সদরে কর্মরত সেনা সদস্য(সিভিল) চাঁচই গ্রামের সাদিয়ার রহমানের পরিবারের উপর নির্যাতন, নিপীড়ন শুরু করে। সেনা সদস্য অভিযোগ করেন, নিবুল সিকদার রামদা, ছেনদাসহ অস্ত্রের মুখে কণ্যা সহ স্ত্রীকে জিম্মি করে অশ্লীল ছবি ভিডিও করাসহ শ্লীলতাহানী করে। ২৬ অক্টোবর রাতে পুনরায় ওই সন্ত্রাসী আমার বাড়ি হামলা চালায়।

 

পুলিশ ও একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালের ৬ মে মাগুরার মহম্মদপুর থানার বেজড়া গ্রামের মৃত আতিয়ার মোল্যার ছেলে মোঃ হাসমত আলী কে হত্যার অভিযোগে নিহতের ভাই মোঃ হোসেন মোল্যা বাদি হয়ে নিবুল সিকদারসহ কয়েকজনকে আসামী করে লোহাগড়া বিজ্ঞ সিনিয়ির জুডিশিয়াল হাকিমের আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- জি,আর-১৪৯/১২। ওই একই ঘটনায় চাচই গ্রামের চৌকিদার মোঃ দাউদ জমাদ্দার বাদি হয়ে নিবুল সিকদারসহ কয়েকজন কে আসামী করে লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৫/২০১২। তাং-০৭/৫/২০১২। ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি চাচই গ্রামের মৃত খবির জমাদ্দারের স্ত্রী নার্গিস বেগম বাদি হয়ে তার স্বামীকে হত্যার অভিযোগে নিবুল সিকদারসহ কয়েকজনকে আসামি করে লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৬। এছাড়াও লোহাগড়া আমলি আদালতে নিবুলসহ কয়েকজনের নামে অপর একটি হত্যা মামলা রয়েছে। মামলা নং-এমপি/৪২/১২। সেনা সদস্য সাদিয়ার রহমানের পরিবারের উপর নির্যাতন, নিপীড়নের ঘটনায় সেনাসদস্যের স্ত্রী সালমা সুলতানা বাদি হয়ে ২০ অক্টোবর নিবুল সিকদারের নামে লোহাগড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-৩৭। এছাড়াও তিনি একই তারিখে সাধারণ ডায়েরি করেন। যার নং- ৮৭০। নড়াইল ছাড়াও পার্শ্ববর্তী অন্য জেলায় নিবুলের নামে একাধিক মামলা আছে বলে গ্রামবাসি জানায়। সব মামলাই আদালতে বিচারাধীন।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) ভোরে নিবুল সিকদার চাচই গ্রামের শুকুর জমাদ্দারের ছেলে শাহিন জমাদ্দার(৩৫)কে কুপিয়ে জখম করেছে। ফজরের নামাজ পড়তে পশ্চিমপাড়া মসজিদে যাবার পথে আছাদ জমাদ্দারের বাড়ির উপর শাহিনকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে পেট ও বুকে মারাত্বক জখম করা হয়। এসময় আহত শাহিনের বন্ধু তানভীর দৌঁড়ে নিজেকে রক্ষা করে। তাদের চিৎকারে গ্রামের লোকজন বেরিয়ে আসলে নিবুল পালিয়ে যায়। পলাতক থাকায় নিবুলের সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।

এ বিষয়ে লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, নিবুল সিকদারের নামে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সর্বশেষ শাহিনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ওসি বলেন, তাকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে। এলাকার ভুক্তভোগী লোকজনসহ সাধারণ মানুষ দ্রুত নিবুলকে গ্রেফতার করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে আসছে প্রশাসনের কাছে।

মতামত.........