,

মুখোশধারী দালাল ঠেকাতে লোহাগাড়ার নবাগত ওসির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ

আবদুল আউয়াল জনি, সংবাদ সবসময়: 

গত ১৭মার্চ চট্টগ্রামের সন্ধীপ থানা থেকে বদলী লোহাগাড়ায় নবাগত ওসি হিসেবে যোগদান করেন মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। যোগদানের পর দালাল ও মাদকমুক্ত লোহাগাড়া গড়তে লোহাগাড়ার সকলের সহযোগিতা চান তিনি। সহযোগিতা চাওয়ার পাশাপাশি ২০শে মার্চ নবাগত ওসি নিলেন একটি ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ, সাংবাদিক নামধারী গুটিকয়েক ব্যক্তি, কিছু মাদক ব্যবসায়ী, গুটিকয়েক মুখোশধারী রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তি আছে যারা থানার বিভিন্ন পুলিশ অফিসারের সাথে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করার মা্ধ্যমে এলাকার সাধারন জনগনের কাছে নিজেদের ক্ষমতাবান হিসেবে প্রকাশের মাধ্যমে মানুষকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বিভিন্ন অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়া সহ নানা ধরণের অপকর্ম করে থাকে, সেসব মুখোশধারীদের দালালী ঠেকাতে থানার দেওয়ালে লিখে দেওয়া হয়েছে “সতর্কবার্তা অনুমতি ছাড়া ফেসবুক আইডিতে কোন পুলিশ কর্মকর্তার সাথে ছবি সংযুক্ত করে পোস্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকুন, ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে সতর্ক থাকুন, অনুুরুধক্রমে অফিসার ইনচার্জ লোহাগাড়া থানা” 

উপরোক্ত পোস্টটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায় বিভিন্ন ব্যক্তি নবাগত ওসির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপের প্রশংসা করেন।

Md Omar Faruk নামের লোহাগাড়ার এক ফেসবুক ব্যবহারকারী একটি পোস্টের কমেন্টসে লিখেছেন আমরা বরাবরই সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে।এটি যদি সত্য হয়ে থাকে অবশ্যই প্রসংশনীয়।

মিছবাহ উদ্দিন রাজিব নামের লোহাগাড়ার এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন এই কাজটি যদি অামাদের সাবেক ওসি সাহেব করতো তাহলে দালাল সৃষ্টি হতো না লোহাগাড়ায়, অসাধারণ একটি কাজ করাই বর্তমান ওসি সাহেবকে ধন্যবাদ।

Jahidul Islam Rashel নামের লোহাগাড়ার এক প্রবাসী ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, জনাব, প্রথম চমক দেখিয়ে দিলেন, মনটা বড্ড খুশি হয়ে গেলো—–প্রথমে মামলার আসামী ধরে বা নতুন মামলার গ্রেফতার দেখিয়ে প্রথমে শুনাম অর্জন করে দেখালেন না–সাধুবাদ জানাই, প্রথম শুনামের প্রথম কার্ড দালালদের জন্য তাও আবার লাল কার্ড, অসাধারণ আশা রাখি নিজের যোগ্যতা দিয়ে লোহাগাড়ার সচেতন সাধারণ জনগণদের দেখিয়ে দিবেন- আইন_সবার_জন্য_সমান ভিন্ন রূপে যেন রূপান্তরিত না হয় দোয়া রইলো।

মোহাম্মদ লোকমান নামের লোহাগাড়ার এক ফেসবুক ব্যবহারকারী একটি পোস্টের কমেন্টসে লিখেছেন ধন্যবাদ, বন্ধ হোক তেলবাজী, তেলবাজদের থানা চত্বর হতে গলাধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়া হোক।

Mohiuddin Ctg নামের লোহাগাড়ার এক ফেসবুক ব্যবহারকারী একটি পোস্টের কমেন্টসে লিখেছেন নিঃসন্দেহে এটি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। কিন্তু এই উদ্যোগ কে ঘিরেই চামচামি শুরু করে দিয়েছে তারাই, যাদের পিকচার সবসময় এফবি তে দেখতাম সদ্য সাবেক হওয়া পুলিশ কর্মকর্তার সাথে।

বেশীরভাগ সচেতন লোহাগাড়াবাসীর চাওয়া তারা যেন নতুন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার হাতধরে এসব গুটিকয়েক সাংবাদিক নামধারী ব্যক্তি, মাদক ব্যবসায়ী, গুটিকয়েক মুখোশধারী রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তির দালালীর হাত থেকে নিস্তার লাভ করতে পারে এবং লোহাগাড়া যেন মাদকমুক্ত থাকে।

মতামত.........