,

মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য করার দাবি

নিজস্ব্ প্রতিবেদক, সংবাদ সবসময়-

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফিরিয়ে নিতে এবং নাগরিকত্বের স্বীকৃতি দিতে মিয়ানমারকে বাধ্য করতে জাতিসংঘের প্রতি দাবি জানিয়েছেন সিপিবি-বাসদ ও বাম মোর্চার নেতৃত্বে ৮টি বাম রাজনৈতিক দলের নেতারা।

রোহিঙ্গা জনগণের ওপর মিয়ানমার সরকারের গণহত্যা ও বর্বরতা বন্ধসহ পাঁচ দফা দাবিতে জাতিসংঘ মহাসচিব বরাবর স্মারকলিপি দিতে গিয়ে এ আহ্বান জানান তারা। আট বাম দলের পক্ষ থেকে দেশব্যাপী পরিচালিত গণস্বাক্ষর অভিযানে সংগৃহীত স্বাক্ষরসহ স্মারকলিপি ঢাকাস্থ জাতিসংঘ অফিসে হস্তান্তর করা হয় রোববার। জাতিসংঘ ঢাকা অফিসের প্রধানের অনুপস্থিতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মি. হেনরি গ্লোরিয়েক্স স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

সিপিবি-বাসদ ও বাম মোর্চার পক্ষে স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মানস নন্দী, সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির বহ্নিশিখা জামালী, বাসদ (মার্কসবাদী)’র জহিরুল ইসলাম। এ ছাড়াও দলসমূহের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপি হস্তান্তর পরবর্তী ব্রিফিং-এ সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল সেলিম বলেন, চীন, রাশিয়া ও ভারত মিয়ানমারে তাদের ব্যাপক বিনিয়োগের স্বার্থে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সহমর্মিতা প্রকাশ করলেও মিয়ানমারের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে আগ্রহী নয়। অপরদিকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে সৃষ্ট অস্থিরতাকে আরো উসকে দিয়ে সমস্যাকে গভীরতর করতে চাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দক্ষিণ এশিয়া এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া নিয়ে মার্কিন ষড়যন্ত্র কারো অজানা নয়। নিরাপত্তা পরিষদে চীন-রাশিয়ার ভেটো ক্ষমতার কারণে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং রোহিঙ্গাদের উপর পরিচালিত গণহত্যা, বর্বরতা বন্ধে মিয়ানমারকে বাধ্য করা সম্ভব নাও হতে পারে। সে কারণে বিষয়টিকে সাধারণ পরিষদে উত্থাপন করে আলোচনার পর সংখ্যাগরিষ্ঠ রাষ্ট্রের সমর্থন অর্জনের জন্য সরকারকে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

মতামত.........