,

বিদ্যুৎ ও নদী ভাঙ্গনের আতঙ্কে ঢাকা উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

হাফিজুল ইসলাম লস্কর, সিলেট-
সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে অবস্থিত ঢাকা উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৮৩০ সালে  প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়টি কিছুটা উন্নয়নের ছোঁয়া পেলেও বাউন্ডারি ওয়াল থেকে এখনো বঞ্চিত এ বিদ্যাপীঠ।
সরেজমিন বিদ্যালয়টিতে গিয়ে দেখা যায় ৬৪ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত দুটি ভবনে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম চলছে, তাও আবার একটি কাচা টিন সেটের ঘর।বৃষ্টি মৌসুম এলেই  টিন সেটের শ্রেনি কক্ষ পানি পড়ে। বিদ্যালয়ের  চতুর্দিকে নেই কোন বাউন্ডারী দেয়াল, নেই কোন গেট। তাছাড়া  ঢাকা উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  প্রধান সড়ক ও খেলার মাঠ  একটু একটু করে নদীতে ভাঙতে থাকে। নদী  ভাঙনের কারনে অভিবকরা আতংকের মধ্যে রয়েছেন। বিদ্যালয়টিতে ৩৭৯জন শিক্ষার্থী রয়েছে। বিদ্যালয়টি ২০০৯ সাল থেকে প্রাথমিকে শতভাগ সাফল্য অর্জন করেছে। তাছাড়া  ভালো ফলাফলের জন্য বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা রাখছেন।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শাহানা চায়নিজ চৌধুরী বলেন, ভাঙনে বিদ্যালয়ের প্রধান সড়ক  নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেল। আমরা কিছুই করতে পারলাম না। বর্তমানে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠটি ও নদী গর্ভে চলে যাচ্ছে।
এছাড়া বিদ্যালয়ে বাউন্ডারী না থাকার ফলে বিদ্যালয়ে লাগানো বিভিন্ন ফলের চারাগাছ  গরু ছাগল খেয়ে ফেলে। বর্তমানে বৈদ্যুতিক আতংকে রয়েছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। কেননা বিদ্যুতের লাইন লিক হওয়ার ফলে শ্রেণি কক্ষের স্টিলের জানালা ও দরজাতে বিদ্যুৎ চলে আসে।
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ নিজাম উদ্দিন বলেন, ১৮৩০ সালে স্থাপিত বর্তমানে দুটি ভবন নিয়ে  বিদ্যালয়ের কার্যক্রম চলছে। বিদ্যালয়ে যাতায়াতের জন্য ব্যবহৃত প্রধান সড়কটি নদী গর্ভে যাওয়ার ফলে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসতে নানা অসুবিধা সৃষ্টি হয়। তাছাড়া বর্তমানে  বিদ্যালয়ের বৈদুতিক সমস্যার সমাধান ও চতুর্থ দিকে বাউন্ডারী দেয়াল স্থাপনের জন্য উর্দধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি।

মতামত.........