,

বাঁশখালীতে জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম,আটক ৩

অর্ধ লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন ও বসত ঘর লুটের অভিযোগ!

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী প্রতিনিধিঃ-

dav

বাঁশখালীর কালীপুর ইউপির জঙ্গল গুনাগরি এলাকার ১ নং ওয়ার্ডের সুধাংশু বিমল ধরের বাড়িতে  জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে পিটিয়ে জখমের ঘটনা ঘটিয়েছে দৃবর্ত্তরা। এ সময় দুর্বৃত্তরা বসতঘরের মেহেগনী ও গামারী গাছ কর্তন এবং ঘরে লুটপাটের ঘটনাও ঘটিয়েছে।  তাছাড়া চলাচলের রাস্তার পাশে বসত ঘরের পুরুনো পাকা দেওয়াল ও ভেঙ্গে ফেলেছে প্রতিপক্ষগন। এ ঘটনায় ১০ সেপ্টেম্বর (রবিবার) সন্ধায় ৩ আসামীকে গ্রেফতার  করেছে থানা পুলিশ।

এছাড়া দৃবর্ত্তদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্হলে গেলে তাদের উপরে ও ছড়া হয় প্রতিপক্ষগন।থানা পুলিশের সাব ইন্সেপেক্টর উৎপল চক্রবর্তী ঘটনার সত্যতা স্বীকার  করে বলেন,ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্হলে গেলে দুর্বৃত্তরা আমাদের উপরেও ছড়া হয়।পরবর্তীতে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য নিয়ে দুর্বৃত্তদের ধাওয়া দিয়ে বসতঘরের অনন্যা সদস্যদের রক্ষা করা হয়।বর্তমানে ঘটনাস্হল পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এ ঘটনায় জখমী বৃদ্ধা সরস্বতী ধর (৬৫) বাদী হয়ে ১৩ জনকে এজহার নামীয় ও ৩০-৪০ জন অজ্ঞাত আসামী দেখিয়ে বাঁশখালী থানায়  মামলা দায়ের করেছে। এ দিকে এ ঘটনায় এলাকায় থমতমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

স্হানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,কালীপুর ইউপির জঙ্গল গুনাগরির ১ নং ওয়ার্ডের সুধাংস বিমল ধরের দখলীয় বিএস দাগ নং ১২৮ জায়গার পরিমান ৩০ শতাংশ বা ১৫ গন্ডা জায়গার উপর কু-নজর লাগে প্রতিবেশি মৃত বন ধুপীর পুত্র কাজল ধুপী গংদের। বৃহস্পতিবার ওই জায়গা দখল ও পাকা ওয়াল ভাঙ্গা সহ বসত ঘরে লুটপাটের ঘটনা ঘটিয়েছে কাজল ধুপীর ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা। তাছাড়া ওই জায়গায় নতুন গৃহ নির্মাণ ও শুরু করেছিল প্রতিপক্ষ। তবে বর্তমানে পুলিশি হস্তক্ষেপে নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। লুটপাটের ঘটনায় ৬৫ বছরের বৃদ্ধা সরস্বতী ধর বাঁধা দিলে তাকে মারধর ও শ্লীলতাহানীর মত ঘটনা ঘটিয়েছে তারা।বাড়িতে পুরুষ সদস্যরা না থাকায় বসতঘর ও লুটপাট চালিয়েছে প্রতিপক্ষগন।বর্তমানে সুধাংশ বিমল ধরের পুরো পরিবার পুনরায় হামলার আতংকে আত্বীয় স্বজনের বাড়িতে অবস্হান নিয়েছে।এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে নিরন্জন দাশ,দিপু দাশ ও সুবল সরকার নামে ৩ আসামীকে গ্রেফতার করেছে।

এ ব্যাপারে বাঁশখালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন,জঙ্গল গুনাগরি এলাকার সংঘটিত হামলার ঘটনায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত তিন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যহত রয়েছে বলে ও তিনি জানান।

মতামত.........