আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি দেখিয়ে অবাধে বিক্রি হচ্ছে কারেন্ট ও নেট জাল
আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি দেখিয়ে অবাধে বিক্রি হচ্ছে কারেন্ট ও নেট জাল

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর পত্নীতলার বিভিন্ন হাট-বাজারে আইনকে অমান্য করে কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী কারেন্ট ও নেট জাল অবাধে বিক্রি করলেও এদের বিরুদ্ধে আইন রক্ষাকারী সংস্থা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন না। এতে করে এর ব্যবসা আরো জমজমাট ভাবে চলছে। কারেন্ট ও নেট জালে মাছ শিকার করায় পত্নীতলার বিভিন্ন মাঠ-ঘাট, নদ-নদী, বিল ও পুকুর-ডোবায় দেশি মাছের দেখা মিলছে না।

বিভিন্ন হাট-বাজারে সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলা সদর নজিপুর নতুনহাট গোপনে, পত্নীতলা বাজার, শিবপুর, মধইল, গগনপুর, পদ্মপুকুরসহ বেশ কয়েকটি হাটে চলতি বর্ষা মৌসুমে বেশ কিছু দিন ধরে অবাধে কারেন্ট ও নেট জাল বিক্রি হচ্ছে। কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী অধিক লাভের আশায় আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি দেখিয়ে নিষিদ্ধ এই কারেন্ট ও নেট জাল বিক্রি করছে। হাতের কাছে সহজে এই জাল কিনতে পাওয়ায় অনেকেই মা মাছ, পোনা মাছ, এমনকি ডিম ও রেণু পর্যন্ত শিকার করছেন। এতে করে সারা দেশের ন্যায় পত্নীতলার বিভিন্ন নদ-নদী, বিল ও পুকুর-ডোবায় দেশি মাছ গুলি বিলপ্তির পথে চলেছে।

অভিজ্ঞ মহল মত পোষণ করেছেন, এভাবে অবাধে কারেন্ট ও নেট জাল দিয়ে মাছ শিকার করলে এক সময় দেশে দেশি প্রজাতির মাছ চোখে আর দেখা মিলবে না। তাই বিক্রয় নিষিদ্ধ কারেন্ট ও নেট জাল বিক্রয় বন্ধের বিষয়ে সংশি¬ষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ ও প্রয়োজনীয় আইনত ব্যবস্থার তাগিদ দিয়েছেন।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস বলেন, বিষয়টি দেখছি। যেহেতু, ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মালেক স্যার, উনি ব্যস্ততার মধ্যে থাকেন। আর, সময় ও সুযোগ হলেই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হবে।

পত্নীতলার হাট-বাজারে অবাধে বিক্রি হচ্ছে কারেন্ট ও নেট জাল

মতামত.........