,

দপ্তরী নিয়োগের ব্যাপারে কাউকে টাকা দিয়ে প্রতারিত হবেননা: ইউএনও লোহাগাড়া

আবদুল আউয়াল জনি, সংবাদ সবসময়:

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে দ্বিতীয় দফায় দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার ৪০টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এলাকার ৪০ জন বাসিন্দাকে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগ দেয়া হবে। উক্ত দপ্তরী কাম প্রহরী পদের জন্য সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে প্রতিটি বিদ্যালয়ে ৪/৫ জন করে প্রায় ২ শতাধিক আবেদনপত্র জমা পড়ে।

দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগকে কেন্দ্র করে স্থানীয় একটি রাজনৈতিক ও প্রভাবশালী মহল মোটা অংকের দুর্নীতি করার পাঁয়তারা করছে বলে জানা গেছে। কয়েকটি দরিদ্র পরিবারের পক্ষ থেকে উক্ত পদের জন্য আবেদন করা হলেও তারা শঙ্কায় আছেন তাদের চাকুরীটি হবে কিনা কারন রাজনৈতিক তদবির, ঘুষ, ও দুর্নীতির মাধ্যমে একটি মহল এসব নিয়োগের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে কয়েকজন আবেদনকারী। তারা আরো বলেন কিছু শিক্ষক, রাজনৈতিক নেতা ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সমন্নয়ে একটি মহল সবাইকে ম্যানেজ করে চাকুরী পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে জনপ্রতি ১/২ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পায়তারা করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চাকুরী প্রত্যাশীর অভিভাবক সংবাদ সবসময়কে বলেন, আমাদের এলাকার বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদটির জন্য আমার ছেলের আবেদন সহ ৫টি আবেদন জমা পড়েছে, বাকি ৪জন চাকুরী প্রার্থীর সবাই সচ্চল ও ধনী পরিবারের সন্তান, অনেকের বাড়িঘর পাকা দালান তাই তারা পদটির জন্য সরকারদলীয় ১জন রাজনীতিবিদকে চাকুরী পাইয়ে দিলে ২ লক্ষ টাকা প্রদান করবে বলে জানতে পেরেছি, তাই শঙ্কায় আছি হয়ত আমার সন্তান চাকুরীটি পাওয়ার যোগ্য হওয়ার পরও হয়ত পাবেনা।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব আলম সংবাদ সবসময়কে বলেন দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগের ব্যাপারে কারো কোনো তদবির গ্রহণ করা হবে না, কোন প্রকার ঘুষ ও দুর্নীতি করার সুযোগ কাউকে দেওয়া হবে না, আমরা প্রার্থীদের বিষয় বিস্তারিত খোজ নিয়ে চাকুরীটি পাওয়ার যোগ্য প্রকৃত ব্যক্তিকেই নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে সম্মত হয়েছি। কেউ যদি উক্ত নিয়োগের ব্যাপারে কারো সাথে কোন প্রকার আর্থিক লেনদেন করেন তাহলে সাথে সাথে তার নিয়োগ বাতিল বলে গণ্য করা হবে। এছাড়াও কেউ কাউকে টাকা প্রদান করেছেন এমন বিষয় প্রমাণিত হলে তার সেটা তার  অযোগ্যতা বলে প্রমাণিত হবে এবং তার বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। দপ্তরী কাম প্রহরী নিয়োগের বিষয়ে কাউকে টাকা দিয়ে চাকুরী পাওয়ার নুন্যতম সম্ভাবনা নেই। আমরা প্রমান করব টাকা না দিয়েও সরকারি চাকুরী পাওয়া যায়। তাই কাউকে টাকা প্রদান করে প্রতারিত না হওয়ার জন্য সকলের কাছে আহবান জানাচ্ছি।

মতামত.........