,

ডাকাতি প্রতিরোধে রাস্তার পাশের ঝোপঝাড় পরিস্কার করছে দোহাজারী হাইওয়ে থানা পুলিশ

আবদুল আউয়াল জনি, সংবাদ সবসময়:

৪ হাজার কিমি সড়ক-মহাসড়কে ডাকাতি-ছিনতাই রোধে এবং মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে ২০০৫ সালে প্রতিষ্টা হয় হাইওয়ে পুলিশ। শুরুতেই ছিল ঢাল নেই তলোয়ার নেই নিধিরাম সর্দারের মতো অবস্থা। বর্তমান সরকারের আমলে যানবাহন ও জনবল বৃদ্ধি করা হলেও চাহিদার তুলনায় তা অতি নগণ্য। ২০১৭ সালের আগষ্ট মাসের পরিসংখ্যান অনুসারে হাইওয়ে পুলিশে লোকবল আছে ২ হাজার ৯২০ জন, গাড়ি আছে ৭২টি, রেকার আছে মাত্র ১৩টি,। এই অল্প জনবল ও যানবাহন দিয়ে সড়ক দুর্ঘটনা রোধ, হাইওয়ে নিরাপদ ও অপরাধ নিয়ন্ত্রণে রাখাটা অনেক কঠিন। ফলে ডাকাতি ও ছিনতাই কিছুটা কমলেও মাঝে মাঝে ঘঠছে ডাকাতি ও ছিনতাই। সড়ক-মহাসড়কের দুইপাশের ঝোপঝাড়গুলোতেই মুলত লুকিয়ে থেকে ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘঠনা ঘটায় দুবৃত্বরা।

শীতের মৌসুমে মহাসড়কে ডাকাতি-ছিনতাই রোধে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পর্যটক ও  সাধারণ যাত্রীদের যাতায়াত নির্ভিঘ্ন করার লক্ষ্যে দোহাজারী হাইওয়ে থানা পুলিশ শুরু করেছে অভাবনীয় পদক্ষেপ। ৩১ অক্টোবর সকালে সাতকানিয়ার মৌলভীর দোকান থেকে কেরানীহাট পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে ঝোপ-জঙ্গল পরিস্কার করে দোহাজারী হাইওয়ে থানা পুলিশের সদস্যরা।

হাইওয়ে পুলিশের ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন মহাসড়কে চলাচলকারী গাড়ির চালক, যাত্রী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, তারা বলেন এরফলে মহাসড়কে ডাকাতি ও ছিনতাই এর ঘঠনা কমবে ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দোহাজারী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান সংবাদ সবসময়কে বলেন, পর্যায়ক্রমে দোহাজারী হাইওয়ে থানার আওতাভুক্ত এলাকা চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়ার মুজাফফরাবাদ থেকে লোহাগাড়ার চুনতি পর্যন্ত ঝোপঝাড় পরিস্কার করা হবে। তিনি এই কার্যক্রমে হাইওয়ে থানার আওতাধীন মহাসড়কের এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুর রহমান সংবাদ সবসময়কে বলেন, জনবল সংকট দূর করা ও যানবাহন বাড়ানোর কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। আমাদের যা আছে তা দিয়েই হাইওয়ে নিরাপদ ও যানজটমুক্ত রাখার চেষ্টা করছি। সেই প্রচেষ্টার বাস্তবায়ন স্বরুপ সড়ক-মহাসড়কের দুইপাশের ঝোপঝাড়গুলো পরিস্কার করার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। আমরা আশাকরছি এরফলে সড়ক-মহাসড়কের দুইপাশের সকল কিছু দৃশ্যমান হবে এবং সড়ক-মহাসড়কে ডাকাতি ও ছিনতাই এর ঘঠনা কমবে।

মতামত.........