,

টিকিটের জন্য কমলাপুরে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড়

2015_09_16_11_28_37_BI2mMSLOZRhI1PA6Lpgt7tEvkPmD67_original

সুমন চৌধুরী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট:

রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি একদিন বন্ধ থাকার পর রোববার থেকে আবার শুরু হয়েছে। ৪ জুলাইয়ের টিকিট নিতে স্টেশনের কাউন্টারগুলোতে টিকিট প্রত্যাশীদের ছিল উপছে পড়া ভিড়।

আগের দিন (শনিবার) দুপুর থেকে স্টেশন আসতে শুরু করেন অনেকে। ইফতার-সেহরি দুটোই সেরেছেন স্টেশনে। তারপরও টিকিট প্রাপ্তি নিয়ে অসংখ্য অভিযোগ। ভ্যাপসা গরম আর প্রচণ্ড ভিড় থাকলেও বাড়ি ফেরা টিকিট হাতে পাওয়াই সবার কাছে বড় কথা।

টানা ২১ ঘণ্টা অপেক্ষায় থেকে কাঙ্ক্ষিত টিকিট পেয়েছেন গাইবান্ধার রাহাত মিনহাজ। গতকাল (শনিবার) রাতে সংবাদ সবসময় প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় তার। তিনি বলেন, কমলাপুর স্টেশনে আসে দুপুর আড়াইটায়। রোজা রেখে সারাদিন সারারাত লাইনে থেকে টিকিট পাইছি। এখন আর কষ্টটাকে কষ্ট মনে হচ্ছে না। বাড়ি ফিরছি, এটা এখন নিশ্চিত।

টিকিট প্রত্যাশীদের লাইন ঠিকঠাক রাখার জন্য খাতায় সিরিয়াল অনুযায়ী নাম লিপিবদ্ধ করা হয়। কিন্তু সিরিয়ালে প্রথম দিকে থেকেও অনেকের এসি টিকিট না পাওয়া অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রাজশাহীর টিকিট প্রত্যাশী মঞ্জু মিয়া জানান, তার সিরিয়াল ছিল ৩৭। তিনি এসি ৪টি টিকিট চাইলে পান দুটি। বাকি দুটি নন এসি নিতে হয়।

টিকিট কালোবাজারিদের হাতে চলে যাচ্ছে আশঙ্কা করে মঞ্জু মিয়া বলেন, ‘এতো আগে দাঁড়ালাম। তাও সুবিধামতো টিকিট পেলাম না। এগুলো মনে হয় ব্ল্যাকারদের হাতে চলে যাচ্ছে। না হলে আমরা কেন টিকিট পাবো না।’

সিরিয়ালের শুরুতে থেকেও কেন এসি টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না এমন প্রশ্নে কমলাপুর স্টেশনের ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী সংবাদ সবসময়কে বলেন, সবাই এসি টিকিট চাইলে তো সবাইকে তা দেয়া যাবে না। এসি টিকিট সীমিত। তাই সেগুলো আগে আগেই শেষ হয়ে যায়।

মতামত.........