images“জীবনের শেষ চিঠির গল্প” এর দ্বিতীয় খণ্ড,
,,আবুবকর সিদ্দিক,,
মোহনা এমন কি লিখেছিল তার শেষ চিঠিতে তা আজ আমরা জানব………………………..
মোহনা লিখেছিল হে আমার প্রাণ প্রিয়তম স্বামী,, , তুমি ছিলে আমার হাইস্কুল জীবনের সহপাঠী ক্লাশমেট ভাল একজন বন্ধু, আর বন্ধু থেকে হয়ে গেলে প্রেমিক, এবং প্রেমিক থেকে হয়ে গেলে আমার স্বামী। আমার জীবনের স্থাবর অস্থাবর সব কিছুর উত্তারাধিকার তুমি, আমার মৃত্যু খুবই নিকটবর্তী ইচ্ছে ছিল তোমাকে কদমবুছি করব, তুমি আমার কাছে নেই তাই করতে পারলামনা, আমার সালামটুকু গ্রহণ করো,
পাঁচটা বছরের তোমাকে চিনেছি এবং জেনেছি ,  আর ১৫ মাস একি ছাদের নিচে বাস করেছি এরি মধ্যে তোমার নিকট থেকে কোন দিন একটি মিনিট ও তোমার অশুভ আচরণ পাই নি, আমি দেখেছি তোমার মধ্যে মনুষ্য বলতে যা কিছু থাকার প্রয়োজন ছিল সবই তোমার মাঝে বিরল,, আমি দেয়েছিলাম তোমার মাঝে আর কিছুটা দিন বেচে থাকতে, কিন্তু আমার ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, মনে হয় তোমার চাইতে বিধাতা আমাকে বেশী ভালবেসেছেন, তাই বিধাতার ডাকে সারা দিয়ে আমি উপারে চলে যাচ্ছি।
স্বামী হিসাবে তোমার কাছে আমার যা পাওয়ার ছিল তার চাইতে বেশী ভালবাসা দিয়েছে তার কোন কৌফিয়ত ছিল না, এ ভাবে হয় যেন পৃথিবীর প্রতিটি স্বামীর ভালবাসা স্ত্রীর উপর। যাক,, সৈকত আমাকে ক্ষমা করে দিও, তোমার দেওয়া আমানত আমি তোমার কাছে ফিরিয়ে দিতে পারলাম না,, তোমার তিন মাসের অন্তাসত্তা অবুঝ শিশুকে আমি হতভাগি পৃথিবীর সুন্দর আলো বাতাস দেখাতে পারলাম না, আমি তোমাকে সন্তানের মুখ থেকে আব্বা ডাক শুনাতে পারলাম না, আমার মৃত্যুর পর, অবুঝ শিশুটি ও মৃত্যুর পারাপারে চলে যাচ্ছে, সৈকত আমাকে ক্ষমা, ক্ষমা, ক্ষমা কর,, তুমি ক্ষমা না করলে আল্লাহ আমাকে ক্ষমা করবেন না……………………
সৈকত শোন,, আমি আর লিখতে পারছিনা আমার মৃত্যুর কপন তোমার কাদে রাখিয় কবরে তোমার নিজ হাতে আমার লাশ রাখিয়। চিরদিনের ঘুম জন্য পরিয়ে দিই আমাকে, তুমি একদম কাঁদবেনা আমার জন্য,, আমি জানি তুমি নামাজ পড়। এখন ও পড়িও, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ শেষে পাঁচ বার আমার জন্য দোয়া করিও, আর একটি কাজ করিও আমার মতো সুন্দর দেখে একটি মেয়েকে বিবাহ করিও,, যার কাছে রাখতে পারবে আমার পবিত্র ভালবাসার আমানত, , আর তাকে বলিও সে যেন আমার মতো তোমাকে মনে প্রাণে ভালোবাসে। আমার চিঠি প্রতিরাতে ঘুমানোর আগে পড়ে নিও,, আমি তোমাকে মাঝে মধ্যে স্বপ্নে দেখা দিব। তোমার স্ত্রী যদি জিজ্ঞাস করে এই চিঠি কার । বলে দিও আমার কথা সে যেন হিংসা না করে। সৈকত আমার জন্য চিন্তা করোনা, আমি যেখানেই থাকব ভাল থাকব, আমার চিন্তা শুধু তোমার জন্য,, আমার মৃত্যুর পর তোমার কি হবে ?
সৈকত আর মোহনা একি নামে থাকবে ?
খোদা হাফেজ
ইতি তোমারই ভালবাসার মোহনা
“জীবনের শেষ চিঠির গল্প” এর দ্বিতীয় খণ্ড, ,,আবুবকর সিদ্দিক,,

মতামত.........