,

গাইবান্ধায় বিদ্যুৎ গ্রাহক ও সেচ পাম্প মালিক সমিতির অবস্থান কর্মসূচী

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:
বিদ্যুৎ গ্রাহক ও সেচ মালিক সমিতি গাইবান্ধা জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল রোববার এক অবস্থান কর্মসূচী বিদ্যুৎ অফিস ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের জেলা নেতা আহমাদুর রহমান রহিমের সভাপতিত্বে অবস্থান কর্মসূচী চলাকালে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য আমিনুল ইসলাম গোলাপ, ওয়ার্কার্স পাটি জেলা নেতা পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহক ও সেচ পাম্প মালিক সমিতির জেলা সভাপতি মাসুদুর রহমান মাসুদ, বাসদ জেলা সমন্বয়ক গোলাম রব্বানী, সংগঠনের জেলা সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, জেলা সাধারণ সম্পাদক আনাউর রহমান, মোহাম্মদ আব্দুল হালিম, মাহাবুর রহমান, আবুল কালাম আজাদ, মাহবুবর রহমান সুমন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ২০১৭ সালে মিটার ব্যবহার করে আমাদের ২.৪.৬ হার্স পাওয়ার মটরের গড় বিল হয়েছে ৮ হাজার টাকা। অন্যদিকে ২০১৪ সালকে ভিত্তি ধরে আমাদের সংশোধিত বিদ্যুৎ বিল দাঁড়ায় গড় ভিত্তিতে ২০ হাজার টাকার মতো। এতে করে আমাদের ২২.০০ সেচ পাম্পে যে বিল ২০১৪, ২০১৫, ২০১৬, ২০১৭ সালে আসে তাতে আমাদের বিল প্রায় ১০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা বেশী যায় তা আমরা কোনদিন দিতে পারবো না। আমরা বিল দিতে চাই তা ২০১৭ সালে যে সকল চালু মিটার ছিল ওই সকল সেচ পাম্পের যে অনুপাতে বিল হয়েছে সেই অনুসারে। আমাদের এই ন্যায্য দাবী মানতে হবে। যে কোনমূল্যে ২০১৭-২০১৮ সালের সেচ মৌসুমে প্রতিটি সেচে মিটার সংযোগ দিতে হবে। বিদ্যুতের দাম কোন ক্রমেই বৃদ্ধি করা যাবে না। বিলিং কম্পিউটার মেশিন রংপুরের পরিবর্তে গাইবান্ধায় স্থাপন করতে হবে। বসতবাড়ির অতিরিক্ত বিল করা যাবে না। পিডিবির অনিয়মকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্রুত বিচার করার দাবি জানান।

মতামত.........