,

গাইবান্ধায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধভেঙ্গে ২৫ হাজার মানুষ পানি বন্দি

02সুমন কুমার বর্মন, গাইবান্ধা (সদর) প্রতিনিধি:
গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের সিংড়িয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে অন্তত্য ৩০ টি গ্রামের কমপক্ষে ২৫ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাতে ব্রহ্মপুত্রের পানির চাপে বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। এতে প্রায় ৫০টি বসত-বাড়ির আসবাবপত্র পানির স্রোতে ভেসে যায় । এসময় আহত হয় প্রায় ১৫ জন ।

প্রায় ১২ ঘন্টায় ৪০ হাজার মানুষ পানি বন্ধি হয়ে পরেছে এবং শনিবার (৩০ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত পানির তেড়ে আরো কয়েক হাজার মানুষ পানি বন্ধি হবে বলে প্রাথমিক ধারনা করা হচ্ছে ।

স্থানীয়রা জানান, ব্রহ্মপুত্রের পানির চাপে রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিংড়িয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের উদাখালী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য রাজা মিয়ার বাড়ির নিকটে প্রায় ২‘শ ফুট ভেঙ্গে যায়। পানির তোরে বাঁধটি ভেঙ্গে যাওয়ায় উপজেলার উদাখালী ও কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের অন্তত ২০ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়াও গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালি ইউনিয়নের বোয়ালি, খামার বোয়ালি ও তালুক বুড়াইলসহ ১০ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি ভেঙ্গে যাওয়ার গাইবান্ধা-ফুলছড়ি সড়রকের বিভিন্ন স্থানে তালিয়ে গিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে ।

ফুলছড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সংবাদ সবসয়কে জানান , পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের গাফিলতির কারনে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি ভেঙ্গে গিয়েছে।01

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকাশ কুমার সরকার সংবাদ সবসয়কে জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ৯২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় পানির চাপ বেড়ে যায়। এতে ফুলছড়ি উপজেলার সিংরিয়ার বাজার ওঁয়াপদা বাঁধের বেশ কিছু এলাকায় ফাটল ধরে ভেঙ্গে যায় ।
গাইবান্ধা জেলা প্রসাশক, আব্দুস সামাদ সংবাদ সবসয়কে জানান বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ ভেঙ্গে গাইবান্ধা জেলার উচু এলকা প্লাবিত হওয়ায় মানুষের দুর্ভোগ বেড়ে গেছে। বন্যা দুর্গদের দুর্ভোগ লাঘবের জন্য জেলা প্রশাসন কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

মতামত.........