,

কিশোরগঞ্জের বড় হাওরে নৌকা ডুবি: এক পরিবারের কান্নার শেষ নেই

images44444444আবদুল্লাহ আল মহসিন, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি :

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার বারুক এর বড় হাওরে পরিবার সহ নৌকা ডুবিতে মাওলানা হাফিজ উদ্দিন (৪৭) গত শনিবার রাত আট টায় নিখোঁজ হন| ঘটনার ২৮ ঘন্টা পর আজ সোমবার ভোর ৫টায় গুন্দর বাজারের দক্ষিণ পাশে মৃত লাশ পাওয়া যায়| এর আগে খবর পেয়ে গতকাল কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ৪ ঘন্টা খোজ করে লাশ উদ্বার চেষ্টা করেছিল|

এলাকাবাসী জানান, ঈদের পর মাওলানা হাফিজ উদ্দিনের পরিবার ঢাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল| তিনি ছিলেন বাড়িতে ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ হয়ে বাড়িতে ফেরার পথে উপজেলার বারুক বাজার ঘাটে আসার পর রাত হয়ে যায়| মাওলানা হাফিজ উদ্দিন তাদের আনার জন্য আগেই একটি ছোট ইঞ্জিনের ট্রলার নিয়ে ঘাটে অবস্থান করছিলেন| রাতেই সেই ঘাট থেকে তার পরিবারের সদস্যরা নৌকায় উঠলে স্ত্রী রেহেনা (৪০) বড় মেয়ে খাদিজা (২০) ও তার ৪ মাসের শিশু নাসিরুল্লাহ,বড় ছেলে আনারুল্লাহ (১৮)বাহালুল (১২) আমিনুল (১০) তাসনিম (৯) আল আমিন (২) তিনি ও ২ মাঝি সহ ১১ জন লোক নিয়ে নৌকা ঘাট ত্যাগ করে|

সেখান থেকে তাদের গ্রামের বাড়ি ইন্দা ৩ কিলোমিটার দূরত্ব| কিছু দূর যাওয়ার পর বড় হাওরে শুরু হয় দমকা বাতাস| উথাল পাতাল ঢেউয়ে রাত আট টার সময় নৌকা ডুবতে থাকে| এসময় তিনি সবাইকে আল্লাহর নাম স্মরণ করতে বলেন| শিশু নাসিরুল কে উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী বিদ্যুতের টাওয়ারে স্টীলের র‌্যালিংয়ে নিয়ে বসিয়ে রেখে আরেক শিশুকে আনতে সাঁতার দিলেও ক্লান্তু হয়ে ডুবে যান|তখন আর খুজে পাওয়া যায়নী, অন্যরা উপুর হওয়া নৌকার ছইয়ায় ধরে কোন রকমে বেঁচে ছিল| প্রায় ২ ঘন্টা এই অবস্থায় ছিল, তাদের আর্ত চিৎকার শুনে দূর থেকে একটি জেলের নৌকা এসে উদ্বার করে|

মাওলানা হাফিজ উদ্দিন উপজেলার জয়কা ইউনিয়নের কান্দাইল দারুস সালাম দাখিল মাদ্রাসার তত্বাবধায়ক ছিলেন|পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে বিপাকে পরে গেছে|তাদের বাড়িতে এখন সুধুই শোকের মাতম|জরুরী ভিত্তিতে সহায়তা দেওয়া প্রয়োজন|

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আছমা বলেন,পরিবারটিকে সব ধরনের সহায়তা করা হবে|তিনি একজন মহান মানুষ নিজের জীবন বিলিয়ে দিলেন পরিবারের জন্য|

মতামত.........