,

কাজ শেষ হওয়ার আগেই ভয়াবহ হুমকির মুখে ছোটধলী ব্রিজ

নুর উদ্দিন মুরাদ, নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ 
একনেকে নোয়াখালীর সোনাপুর –জোরালগঞ্জ সড়ক প্রকল্পের ২শ’৪৫ কোটি ৩৯ লাখ টাকা চূড়ান্ত অনুমোদন হয়েছিলো গত বছরের ২৭ জুলাই।যা নোয়াখালী বাসীর দীর্ঘ দিনের প্রাণের দাবী ছিল সোনাপুর থেকে শুরু হয়ে সোনাগাজী (চট্রগ্রাম জোরালগঞ্জ) সড়ক। নোয়াখালী জেলার ক্ষতিগ্রস্ত উপকূলীয় এলাকা পুনর্গঠনে অবশেষে সোনাপুর – জোরালগঞ্জ  সড়কটি গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখবে এটায় ছিলো জনসাধারনের আশা।

প্রকল্পের অনুমোদনের পর কাজ আরম্ভ হয়ে দ্রুত গতিতে এগিয়েও চলছে ছোটধলী ব্রিজ। যা সোনাপুর -সোনাগাজীর একমাত্র সংযোগস্থল। কিন্তু বর্তমানে মুল ব্রিজ থেকে প্রায় ১০০ মিটার ভেঙ্গে পানিতে বিলীন হয়ে গেছে।

এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তি বালু উত্তোলন কে দায়ী করে বলেন,মুছাপুর ইউনিয়নে সোনাপুর-সোনাগাজী সংযোগ লক্ষ্যে ছোটধলী যে ব্রিজ টি হচ্ছে সেটা পূর্ব অঞ্চলের সাথে পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ এবং দু অঞ্চলের পরিবর্তনের জন্য অনেক গুরুত্বপুর্ন। জানিনা, কোন স্বার্থে এবং কার লাভে বালু উত্তোলন করা হয়েছে ব্রিজের আশ-পাসের থেকে!

তবে এটার খেসারত স্বরুপ এখনই ভাঙ্গন ধরেছে ব্রিজের আশ পাসে। ব্লক দেয়ার পরও রক্ষা কঠিন হয়ে পড়তেছে। যেকোনো কাজ করার সময়, চিন্তা করা উচিত যে এটা কতটুকু প্রভাব ফেলতে পারে আর এটা দ্বারা সমাজ কত টুকু ক্ষতিগ্রস্ত হবে!! কয়েকজন মানুষের স্বার্থ এবং পরিকল্পনা বিহীন কর্মে লক্ষ মানুষের উপর দুর্যোগ নেমে আসবে -তা কখনই কাম্য নয়।

এবিষয়ে মুছাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম শাহীন বলেন,অপরিকল্পিত বালু উত্তোলনের ফলেই এখন ব্রিজ টির বর্তমানে কঠিন অবস্থা।এখন যদি ব্যাবস্থা না নেয়া হয় তবে আরো কঠিন অবস্থার দিকেই যাবে।তাই সরকার কে অনুরোধ করবো দ্রুতই ব্যাবস্থা নেয়া হোক।

মতামত.........