সম্পাদনায় সুমন চৌধুরী:
“ভাটি অঞ্চলের রাজধানী” হিসেবে খ্যাত বাংলাদেশের হবিগঞ্জ জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা আজমিরীগঞ্জ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অবস্থিত। এই উপজেলাকে ঘিরে রয়েছে কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ জেলার অন্যান্য উপজেলা। এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। এখানে সিলেটি ভাষার সাথে সাথে বিভিন্ন আদিবাসীদের প্রচলিত ভাষাও প্রচলিত রয়েছে।
azmere-1
অবস্থান উত্তরে শাল্লা উপজেলা, পূর্বে বানিয়াচং উপজেলা, দক্ষিণে বানিয়াচং উপজেলা এবং পশ্চিমে ইটনা উপজেলা। ইউনিয়ন পরিষদ সমুহ শিবপাশা, জলসুখা, কাকাইলছেও, বদলপুর ও আজমিরিগঞ্জ উপজেলার পটভূমি উপমহাদেশের বিশ্ববিখ্যাত সুফী সাধক সুলতানুল হিন্দ খাজা গরীবে নেওয়াজ হযরত খাজা মঈন উদ্দিন চিশতী আজমিরী (রহ:)র সুযোগ্য প্রতিনিধি কুতুবে রব্বানী হযরত শাহ সুফী আলহাজ্ব হাফিজ খাজা সৈয়দ মোহাম্মদ ইসহাক চিশতী (রহ:) প্রায় দেড় শতাব্দী পূর্বে আজমির শরীফের প্রতিনিধি হিসাবে এ প্রাচীন জনপদে পবিত্র ইসলাম ধর্মের প্রচার প্রসারের লক্ষে সুদূর ভারত হতে হিজরত করে তশরীফ এনেছিলেন।
azmeree-1
তার পবিত্র প্রচারনায় এবং অসাম্প্রদায়িক পবিত্র বাণীর প্রভাবে ধীরে ধীরে জনসাধারণ দ্বীন ইসলামের সুশীতল ছায়ায় আশ্রয় লাভ করে এবং সর্বসাধারণ তাকে আজমিরী বাবা বলে অভিহিত করেন। পরবর্তী সময়ে আজমিরী বাবা কুতুবে রব্বানী আ্উলিয়ায়ে কামিল হযরত শাহ সুফী আলহাজ্ব খাজা হাফিজ সৈয়দ মোহাম্মদ ইসহাক চিশতী (র:)এর পবিত্র স্মৃতির স্মরণে সরকারী গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে এ উপজেলার নাম আজমিরীগঞ্জ নামকরণ করা হয়।

কৃতী ব্যক্তিত্ব জগৎজ্যোতি দাস – স্বাধীনতা যুদ্ধে বীর বিক্রম খেতাবপ্রাপ্ত একজন মুক্তিযোদ্ধা। এছাড়া ফজলুল হক চৌধুরী সহ আরো অনেকেই মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন স্বাধিনতা যুদ্ধের সময় বিশিষ্ট কন্ঠ শিল্পি গিতীকার ও সুরকার আপেল মাহামুদ এই এলাকায় যুদ্ধ করেন। আয়ের উৎস বেশির ভাগ মানুষের উৎস হল মৎস ও কৃষি এছাড়া ব্যাবসায়ি ও চাকুরীজীবী।

এক নজরে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা

সিলেট বিভাগ জেলা – হবিগঞ্জ জেলা স্থানাঙ্ক ২৪.৫৪৭২° উত্তর ৯১.২৫০০° পূর্ব আয়তন২২৩.৯৮ বর্গকিমি সময় স্থান বিএসটি (ইউটিসি+৬) জনসংখ্যা (২০১১)-৯৯,২৪০জন[১] ঘনত্ব – ৪৪৩ বর্গকিমি শিক্ষার হার – ৩৬%।

এক নজরে “ভাটি অঞ্চলের রাজধানী” বাংলাদেশের হবিগঞ্জ জেলার উপজেলা আজমিরীগঞ্জ

মতামত.........