,

ঈদের আনন্দ বাতাসের সাহায্যে ভাসিয়ে দিলেও তা দেয়ালের সাথে ধাক্কা খেয়ে ফেরৎ আসে !

13563426_874010252708955_976378259_nলেখকঃ আব্দুর রহিম :

লিখার শুরুতে সবাইকে আমার পক্ষ থেকে সবার প্রতি অগ্রিম ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক! ঈদ মোবারক!! ঈদ মোবারক!!!
 
প্রাকৃতিক নিয়মে প্রতি বছর ঈদ আসে এবারও এলো ঈদ, ঈদ শব্দটির প্রকৃত অর্থ হলো খুশি-আনন্দ, এই খুশি-আনন্দের দিনটিতে কেউ খুশির ছোঁয়া পাই আর কেউ বেদনার দ্বাহে নিরবে জ্বলে!!
 
১. কেউ ভালো খাবার খেয়ে, দামী কাপড় পড়ে, আতর মেখে আনন্দ উপভোগ করে। আবার কেউ নিজের জন্য মোটা চাউলের দুমুঠো ভাতের হাহাকারে ঈদের আনন্দ ভেসে যায় বেদনার অথৈই সাগরে।
 
২. কেউ কেউ মা-বাবা ভাই-বোন সকলকে সাথে নিয়ে দামী দামী সব কিছুর ভরণপোষণে ঈদের অনাবিল আনন্দ উপভোগ করে। আবার কেউ কম রোজগারের কারণে অভাবের কষাঘাতে চাওয়া-পাওয়ার ভারসাম্য আনতে না পেরে পরিবারের সদস্যদের কুটকথা শুনে তিক্ত মানসিকতা নিয়ে আনন্দের অভিনয় করে ঈদ অতিক্রম করে।
 
৩. আবার কোন মা অপেক্ষায় থাকে তার চাকরিজীবি সন্তানটি ফিরবে সন্তানকে সাথে নিয়ে ঈদ হবে মহা আনন্দের, সন্তানও তার মায়ের কথা ভুলেনা মায়ের জন্য জামদানি শাড়ি নিয়ে আসে! মা শাড়ি পেয়ে আনন্দে আত্মহারা, আনন্দ মাখা মনে অজস্র খুশি নিয়ে জামদানি শাড়ি পড়ে ছেলেকে সাথে নিয়ে ঈদ উপভোগ করে।
টাকা পয়সা সবই আছে কিন্তু গত বছরের মত তার সেই আদরের সন্তানটি নেই! ঘাতকের টার্গেট ক্লিং বা ক্রসফায়ারে তার অত্যন্ত আদরের সন্তানটির মৃত্যু হয়ে গেছে হয়তো ক’দিন আগে…..! সন্তানের শোক স্মৃতি নিয়ে চোখের পানিতে ঈদের আনন্দ ভেসে যায় সে মায়ের নিরব নিস্তব্ধি হূদয়ের ক্রন্দনে।
 
৪. প্রবাসীদের ঈদ একটি বালুর মাঠের মত যেখানে ঈদের আনন্দ বলে কিছুর ছোঁয়া লাগেনা, ঈদ আসে কিন্তু ঈদের আনন্দ আসেনা, তবে ঈদের আগে স্বজনদের জন্য প্রয়োজনীয় খরচাপাতি পাঠাতে পারলেই খানিকটা ঈদের আনন্দ ভাসে চোখে মুখে ঈদের আগেই! তাদের ভাবনায় থাকে দেশে পরিবারের সবাই অন্তত হাসি খুশিতে ঈদ করতে পারতেছে সেটাই প্রবাসীদের জন্য ঈদের খুশি হয়ে থাকে।
 
আবার কিছু প্রবাসী আছে তার চাকরির স্থানে সঠিক সময়ে বেতনাদি পায়না, তার যতটুকু আয় তার চেয়ে পরিবারের চাহিদা বেশি! নিজের ইচ্ছে থাকার পরেও তার সিমাবদ্ধতার কারণে চাহিদা পূর্ণ করতে ব্যর্থ হয়। সেই ব্যর্থতার বিনিময়ে ঈদের আগমুহূর্তেও তাকে শুনতে হয় পরিবারের আপন মানুষজনের কাজ থাকে তিক্ত কথা! তিক্ত কথার তিরে আহত হয়ে ধাবিত হয় ঈদের সময় গুলো।
 
প্রবাসীদের ঈদের দিনটি কাটে ঘুমে!! ঘুম ছাড়া করার তেমন কিছুই থাকেনা ঈদের নামাজ পড়ে এসে বাড়িতে টেলিফোনে ঈদ বিনিময়…… তাও একতরফা!! যারা আরব দেশ গুলোতে প্রবাসী হিসেবে থাকেন তারা একদিন আগেই ঈদ পড়ে থাকেন, দেশে তখনো রোজা…. ঈদের আনন্দ বাতাসের সাহায্যে ভাসিয়ে দিলেও তা দেয়ালের সাথে ধাক্কা খেয়ে ফেরৎ আসে!!
আপনজন থাকে দূরে একাকীত্ব ঈদের আবছা আঁধার নিয়ে প্রবাসে বাসায় ঘুম ছাড়া আর কিইবা করার আছে?
 
লেখকঃ আব্দুর রহিম, প্রধান উদ্যোক্তা, পুটিবিলা যৌতুক ও মাদকবিরোধী সম্মিলিত সচেতন নাগরিক ঐক্য পরিষদ, লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম।
বিঃ দ্রঃ মুক্তমত বিভাগে প্রকাশিত লেখা লেখকের একান্ত নিজস্ব মত, এর কোন দায়ভার সংবাদ সবসময় বহন করবেনা।

মতামত.........