,

ঈদের আগেই সুখবর পাবেন

ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটের সড়কপথে যাতায়াতকারীরা ঈদের আগেরই সুখবর পাবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (২৬ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বহুল কাঙ্ক্ষিত দেশের প্রথম মেট্রোরেলের ভূমি উন্নয়ন কাজ ও বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) নির্মাণ কাজের উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ সরকারের আমলে ২১ হাজার কিলোমিটার নতুন সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। সড়ক-মহাসড়কে দ্রুতগতির লেনের পাশাপাশি ধীরগতির গাড়িগুলোর জন্যও আলাদা লেন রাখা হয়েছে। যাতে স্থানীয় যোগাযোগে সুবিধা হয়। ৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর আমরাই প্রথম এ ধরনের লেন চালু করেছি।

তিনি বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম বা ঢাকা-ময়মনসিংহের মতো ঢাকা-সিলেট রুটের মহাসড়কও চার লেনে উন্নীত করা হবে। এরই মধ্যে ফিজিবিলিটি স্ট্যাডির কাজ হয়ে গেছে। কাজও শুরু হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের দিকে কেউ তাকায় না। এজন্য সেখানকার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যেই পটুয়াখালীতে পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে। এছাড়াও ওই অঞ্চলে সেনাবাহিনীর একটা আলাদা ডিভিশন, নৌবাহিনীর একটা ঘাঁটি করার পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের অভ্যন্তরের যোগাযোগের পাশাপাশি আঞ্চলিক যোগাযোগেও গুরুত্ব দিচ্ছি আমরা। সড়ক যোগাযোগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে চার দেশ মিলে (বাংলাদেশ, ভুটার, ইন্ডিয়া, নেপাল) স্থাপিত বিবিআইএন’কেও গুরুত্ব দিচ্ছি। এরই মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। শিগগিরই এটি যান চলাচলের জন্য পুরোপুরি খুলে দেওয়া হবে।

মতামত.........