,

আড়াই ঘণ্টায় বিজয় এক্সপ্রেস’র সব টিকেট শেষ

traঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রির শেষ দিনে চাহিদা বেড়েছে যাত্রীদের। আগামী ৫ জুলাই এর টিকেট ‍নিতে শনিবার রাত থেকেই স্টেশনে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছেন যাত্রীরা।

রেল কর্মকর্তারা বলছেন, আগামী মঙ্গলবার (৫ জুলাই) ঈদের ছুটি শুরু হবে। তাই যাত্রীদের চাহিদা বেড়েছে। বিষয়টি মাথায় রেখে স্পেশাল ট্রেন ও অতিরিক্ত বগি যুক্ত করা হয়েছে।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের পরিবহন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ৬ হাজার ৮৩১টি আসন বরাদ্দ রাখা হয়েছে। যতক্ষণ টিকেট থাকবে ততক্ষণ বিক্রি করা হবে। অতিরিক্ত বগি সংযুক্ত করার ফলে চাপ থাকলেও যাত্রীরা টিকেট পাচ্ছে বলে দাবি করেছেন রেল কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম রেলস্টেশন ম্যানেজার মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, রোববার যথানিয়মে সকাল ৮টা থেকে ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আড়াই ঘণ্টার মধ্যে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকেট শেষ হয়ে যায়। এছাড়া প্রথম তিন ঘণ্টায় অন্যান্য ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকেট বিক্রি হয়েছে।

অগ্রিম টিকেট বিক্রির শেষ দিনে চাহিদা বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রথম দিকে খুব বেশি চাহিদা ছিল না।শনিবার থেকে চাহিদা বাড়তে থাকে। শেষ দিনে সবচেয়ে বেশি চাহিদা রয়েছে। তবে এবার অতিরিক্ত বগি ও নতুন একটি ট্রেন সার্ভিস চালু হওয়াতে টিকেট সংকট নেই বলে জানান স্টেশন ম্যানেজার।

তিনি বলেন, কাউন্টারে যতক্ষণ টিকেট থাকবে ততক্ষণ স্বচ্ছভাবে টিকেট বিক্রি হবে। কোন ধরণের অনিয়ম হবে না। যে কোন ধরণের অনিয়ম ও কালোবাজারি বন্ধে রেল পুলিশ, নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাবের অস্থায়ী ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে।

গত বুধবার (২২ জুন) থেকে ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি কার্যক্রম শুরু হয়। ওইদিন দেওয়া হয়েছে ১ জুলাই এর অগ্রিম টিকেট। ২৩ জুন ২ জুলাই, ২৪ জুন ৩ জুলাই, ২৫ জুন ৪ জুলাই ও ২৬ জুন দেওয়া হবে ৫ জুলাইয়ের টিকেট। একইভাবে ৪ জুলাই ৮ জুলাই’র ফিরতি টিকেট দেওয়া হবে। ৫ জুলাই ৯, ৬ জুলাই ১০, ৭ জুলাই ১১ ও ৮ জুলাই ১২ জুলাই’র ফিরতি টিকেট দেওয়া হবে।

স্টেশন ম্যানেজার জানান, মোট টিকেটের মধ্যে সাধারণ গ্রাহকদের জন্য ৬৫ শতাংশ স্টেশনে এবং ২৫ শতাংশ অনলাইনে উন্মুক্ত। বাকি পাঁচ শতাংশ ভিআইপি এবং পাঁচ শতাংশ রেলওয়ে কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ থাকে।

চট্টগ্রাম থেকে প্রতিদিন ৯টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে।পরিবহন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকাগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেস প্রতিদিন সকাল ৭টা, ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস সকাল ৭টা ২০ মিনিট, সিলেটগামী পাহাড়িকা পৌনে ৯টা, মহানগর এক্সপ্রেস বেলা সাড়ে ১২টা, মহানগর গোধূলী বিকেল ৩টা, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস বিকেল ৫টা, চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস বিকেল সোয়া ৫টা, উদয়ন রাত পৌনে ১০টা ও তূর্ণানীশিতা রাত ১১টায় চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে। এছাড়া সাগরিকা সকাল সাড়ে ৭টা, চট্টলা এক্সপ্রেস সকাল সোয়া ৮টায় এবং কর্ণফুলী সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে।

মতামত.........